অমর একুশে।। শহিদ স্মরণে কলকাতা সহ গোটা পশ্চিমবঙ্গ, শান্তিনিকেতনে পালিত ২১, শ্রদ্ধা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক
কলকাতা

Published Time

February 21, 2021, 12:36 pm

Updated Time

February 21, 2021, 12:52 pm
ekushey-february-was-celebrated-in-santiniketan
অমর একুশে

আজ একুশে ফেব্রুয়ারি। অমর একুশের শুভক্ষণে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে চলছে শহিদ স্মরণ। তোড়জোড় শুরু হয়ে গিয়েছিল অনেক আগে থেকেই। 

কলকাতার বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো দারুণভাবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

এবং প্রতি বছরের মতো এ বছরও ভাষা আন্দোলনের শহিদদের স্মরণে বিশ্বভারতীতে পাঠরত বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা মাতৃভাষা দিবস পালন করেন।

অসম্ভব একটা ভালোলাগা, গৌরবের দিন আজ। 

রবিবার সকালে শান্তিনিকেতনের পথে শোনা যাচ্ছে, ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি/ আমি কি ভুলিতে পারি’। 

শুধু কী এই পড়ুয়ারাই? তাঁদের সঙ্গে পা মিলিয়েছেন বিশ্বভারতীর অন্য পড়ুয়ারাও। 

২১ ফেব্রুয়ারির সকালে গানে গানে শহিদবেদিতে ফুল-মালা দেন তাঁরা। শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মহান শহীদদের। ২১ শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে বিশ্বভারতীকে সাজানো হয়েছে। 

বাংলাদেশ ভবনে শহিদবেদির সামনে বাংলাদেশি পড়ুয়ারা আলপনা দিলেন মনের আনন্দে-গর্বের সাথে। আছেন ভারতের শিক্ষার্থীরা। আজ ভারত বাংলাদেশ নয়, আজ ২১শে ফেব্রুয়ারি। এই একুশ আপামর বাঙালির। 

ভারতে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের শহিদ দিবস/ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন আমাদের কাছে অনেক বড় প্রাপ্তি।সম্মান জানান ভারতের মাটিকে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা। 

এদিন সকালে কলকাতার পার্ক সার্কাস এলাকায় বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন গ্রন্থাগার থেকে বের হয় প্রভাতফেরি। যেহেতু করোনাকাল ফলে সাবধান থাকতে হয়েছে। বাংলাদেশেও সাবধানতা অবলম্বন করা হয়েছে শহীদ দিবস পালনের ক্ষেত্রে। 

অন্যদিকে, বিড়লা প্ল্যানেটোরিয়াম চত্বরে নির্মিত ভাষা শহিদ উদ্যানের শহিদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে ছিলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম সহ অন্যান্য অনেকে। 

বাংলাদেশ-পশ্চিমবঙ্গ তো বটেই, পাশাপাশি এদিন ত্রিপুরা, বিহার, ঝাড়খণ্ড, ওডিশা, ছত্তিশগড়সহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের বাংলাভাষীরা বিভিন্ন কর্মসূচির উদ্যোগ নিয়েছেন।

ত্রিপুরা রাজ্যেও পালন হয়েছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। 

মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, “আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে রবীন্দ্র শতবার্ষিকী ভবনে অনুষ্ঠান ও স্মৃতি স্মারকে শ্রদ্ধা নিবেদন হয়। ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করি।

বিরাট এই ভারতবর্ষে যেমন অসংখ্য ভাষার বৈচিত্র্য রয়েছে তেমন আমাদের ত্রিপুরাতেও অনেক ভাষার প্রচলন রয়েছে। প্রত্যেকটি ভাষাই আমাদের সংস্কৃতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ এবং অবিচ্ছেদ্য অংশ”।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো বাংলা ভাষা আন্দোলনের প্রতি সম্মান জানিয়ে ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। এর পর থেকেই গোটাবিশ্বে এই দিনটি উদযাপিত হয়ে আসছে শ্রদ্ধার সাথে। 



Recent News

Available at

© 2019 - Maintained by EZEN Software & Technology Pvt. Ltd