ভারতে করোনার 'সেকেন্ড ওয়েভ' নিয়ে কোন ভয় নেই, AIIMS ডিরেক্টর ড. রণদীপ গুলেরিয়ার বার্তা উড়িয়ে আশ্বাস কেন্দ্রের

নিউজ ডেস্ক
কলকাতা

Published Time

September 16, 2020, 9:25 pm

Updated Time

September 16, 2020, 9:25 pm
there-is-no-fear-of-coronas-second-wave-in-india
ছবি সূত্র অন্তর্জাল

ভারতে করোনার সেকেন্ড ওয়েভ এসেছে, যে বার্তা দিয়েছিলেন এইমসের ডিরেক্টর ড. রণদীপ গুলেরিয়া, সে বার্তা পুরোপুরি উড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্র! 

রণদীপ গুলেরিয়ার মন্তব্য মানতে নারাজ কেন্দ্র! 

করোনার সেকেন্ড ওয়েভ শুরু হয়েছে, এমন বিষয়কে খারিজ করেছেন ICMR-এর ডিজি বলরাম ভার্গব।

মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ভারতের চলমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে কার্যত রণদীপ গুলেরিয়ায় কথাকে উড়িয়ে দিয়েছেন বলরাম।

ভার্গব বলেন, “জানি না আপনারা সেকেন্ড ওয়েভ বলতে কী বোঝাতে চাইছেন। আমেরিকা এবং ইউরোপের অন্যান্য দেশে সংক্রমণ চরমে পৌঁছে গিয়েছিল। সেখান থেকে নেমেছে এবং তারপরেই সেখানে সেকেন্ড ওয়েভ এসেছে”।

উল্লেখ্য, রণদীপ বলেছিলেন, ভারতের কোন কোন জায়গায় করোনার সেকেন্ড ওয়েভ শুরু হয়ে গেছে! এবং এটি হয়েছে সাবধানতার অভাবের জন্যেই।

ভার্গবের মতে, আমরিকা থেকে ভারত শিক্ষা নিয়েছে। 

তাঁর কথায়, ভারত কার্ভকে ভাঙতে সক্ষম হয়েছে। এবং ভালোর দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে। এবং সে জন্যেই ভারতে মৃত্যুর সংখ্যাটাও অন্য দেশের তুলনায় কম! 

তিনি আরো বলেন, লকডাউনের জন্যেই এটি সম্ভব হয়েছে। 

উল্লেখযোগ্য যে, ভারত বর্তমান ইতিবাচক একটি জায়গায় রয়েছে। 

কোভিড ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে ভারতে জোরদারভাবে কাজ চলছে। ইতিমধ্যে রাশিয়াও জানিয়ে দিয়েছে, মোট ১০ কোটি ডোজ স্পুটনিক-৫ ভারতকে দিচ্ছে। 

অপেক্ষা শুধু সবুজ সংকেতের! অনুমোদন পেয়ে গেলেই ভারতকে টিকা দিতে আর দেরি করবে না পুতিনের দেশ!

 

বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর আনন্দের এই সংবাদটি জানিয়ে দিল রাশিয়ার ওয়েলথ ফান্ড।

রাশিয়া ইতিমধ্যে ভারতকে মহামারি করোনা ভাইরাসের ১০ কোটি ডোজ টিকা দেয়ার কথা জানিয়েছে।

ভারতীয় ঔষধ কোম্পানি 'ড. রেডিস ল্যাবোরেটরিস' রাশিয়া থেকে স্পুটনিক-৫’ আমদানি করা হবে।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, দেশে বন্টন করার আগে ঠিক অ্যাস্ট্রোজেনেকার মতো স্পুটনিক-৫ এর একপ্রস্থ ট্রায়াল করা হবে।

গোটা বিশ্বে ভ্যাকসিন তৈরির ইঁদুর দৌড়ে সব দেশকে চমকে দিয়ে রাশিয়া দেখিয়ে দিয়েছে তার শক্তি! স্পুটনিক-৫-ই হচ্ছে পৃথিবীর প্রথম করোনা ভ্যাকসিন!

উল্লেখযোগ্য যে, ব্রাজিল, মেক্সিকো, কাজাখাস্তানে ইতিমধ্যে রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড ইতিমধ্যেই টিকা পাঠিয়ে দিয়েছে।

ভার্গব মঙ্গলবার বলেছেন, “ভারতে তিনটি ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে। ক্যাডিলা ও ভারত বায়োটেক প্রথম পর্যায়ের ট্রায়াল সম্পন্ন করে ফেলেছে। সেরাম ইনস্টিটিউট দ্বিতীয় পর্যায়ের বি থ্রি ট্রায়াল শেষ করেছে। ছাড়পত্র মিললেই তারা দেশের ১৪টি জায়গায় ১৫০০ স্বেচ্ছাসেবীর উপর তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু করবে।” 


Related Posts

loading
Recent News

loading
Available at

© 2019 - Maintained by EZEN Software & Technology Pvt. Ltd