অ্যাপে কোপ মেরে চিনকে শিক্ষা দিতে চাইছে ভারত

এন ই নাও নিউজ
গুয়াহাটি,
June 30th 2020, 1:35 pm
59-chinese-apps-banned-in-india-including-tiktok
নিষিদ্ধ কোন কোন অ্যাপ

চিনকে তাড়ালো ভারত। অবশ্য চিনা সেনাবাহিনী নয়। আপাতত দেশবাসীর মোবাইল থেকে চিনা অ্যাপদের তাড়াতে তৎপর ভারত সরকার। সার্জিকাল স্ট্রাইক নয়, এ হল ডিজিট্যাল স্ট্রাইক।

টিকটক, ইউসি ব্রাউজার, শেয়ার-ইট, উই-চ্যাট, ক্যামস্ক্যানার, ক্লিন মাস্টার, সুইট সেলফির মতো জনপ্রিয় ৫৯টি মোবাইল অ্যাপ নিষিদ্ধ হিসেবে ঘোষণা করেন তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। তাঁর দাবি, দেশের নিরাপত্তা, সংহতি, সার্বভৌমত্ব সুরক্ষিত করতেই এই পদক্ষেপ। 

বেশ কয়েকটি অ্যাপের মাধ্যমে চিন তথ্য সংগ্রহ করে বলে বারবার অভিযোগ উঠেছে। গালওয়ানে চিনা আগ্রাসনের পরেই দেশ জুড়ে চিনা অ্যাপ, চিনা সামগ্রীর বিরুদ্ধে দেশজুড়ে বয়কটের ডাক দিয়েছে বিভিন্ন সংগঠন। 

কিন্তু যে দেশে টুনি আলো থেকে শুরু করে চটি, খেলনা থেকে মোবাইল, ৯৫ শতাংশ বৈদ্যুনিত সামগ্রী চিনে তৈরি সেখানে শুধুমাত্র অ্যাপ নিষিদ্ধ করে কতটা চিনমুক্ত করা যাবে ভারতকে উঠছে সেই প্রশ্ন।

প্রধানমন্ত্রী আত্মনির্ভর হতে বলছেন বটে, কিন্তু ওয়াকিবহাল মহলের মতে, চিনা মোবাইল ও বেশি কিছু চিনা অ্যাপের বিকল্প এখনও বাজারে নেই। চিনা অ্যাপগুলির জনপ্রিয়তা ভারতে প্রচুর। টিকটকের গ্রাহক সংখ্যাই ১০ কোটির বেশি! তাই মানুষ নিষেধাজ্ঞা কতটা মানবেন সন্দেহ। 

প্রত্যেকের মোবাইল থেকে অ্যাপ ডিলিট করানো সম্ভব নয়। কি ভাবে অ্যাপ নিষিদ্ধকরণ কার্যকর হবে- তারও নির্দিষ্ট রূপরেখা নেই।

সরকারি সূত্র জানাচ্ছে গুগল ও অ্যাপেলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়্ছে। গুগল প্লে স্টোর, আইওএস অ্যাপ স্টোর থেকে ওই অ্যাপগুলি ডাউনলোডের সময়ই ব্লক করার ব্যবস্থা হবে। 

যারা ইতিমধ্যে অ্যাপগুলি ব্যবহার করছেন তাদের ক্ষেত্রে যাতে ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারীরা 

ওই অ্যাপ ব্যবহারের সময় নেট বন্ধ করে দেয়- তেমন অনুরোধ রাখা হচ্ছে। অবশ্য তা কতটা বাস্তবসম্মত- তা নিয়ে সন্দেহ থাকছে।

কেন্দ্রীয় খাদ্য ও গণবন্টনমন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ানও তাঁর মন্ত্রকে চিনা পণ্য কেনার উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন।  


Related Posts

Recent News

Available at

© 2019 - Maintained by EZEN Software & Technology Pvt. Ltd